Answer

নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কী কী?

অথবা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ বর্ণনা কর।
অথবা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য উল্লেখ কর।
অথবা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধর।
অথবা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য আলোচনা কর।
অথবা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ ব্যাখ্যা কর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
সাধারণভাবে ক্ষমতাহীনদের মাঝে ক্ষমতা প্রতিষ্ঠাকে বলা হয় ক্ষমতায়ন। ক্ষমতায়ন একটি ব্যাপক বিষয় যা রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে দৃঢ় অবস্থানের ভিত্তিতে রাজনৈতিক ব্যবস্থায় সিদ্ধান্ত গ্রহণে অংশ নেয়াকে বুঝায়। এক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতার বিষয়টি আরো গুরুত্বপূর্ণ।
নারীর ক্ষমতায়ন : সাধারণত উন্নয়মূলক কর্মকাণ্ডে নারীকে সরাসরি অংশগ্রহণ করানোর প্রক্রিয়াকে নারীর ক্ষমতায়ন বলা হয়। নারীর ক্ষমতায়ন এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যেমে নারী তার নিজ অবস্থান বা আপেক্ষিক সামাজিক মর্যাদা সম্বন্ধে সচেতন হবে, বিরাজমান সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অবস্থানগত বৈষ্যম্যের প্রতিবাদে সোচ্চার হবে। সুতরাং নারীর ক্ষমতায়ন হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে নারী বস্তুগত, মানবিক ও বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদের উপর অধিকতর নিয়ন্ত্রণ অর্জন করে এবং পিতৃতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থা, সমাজের সকল প্রতিষ্ঠান ও সকল কাঠামোয় জেন্ডারভিত্তিক বৈষ্যম্যকে চ্যালেঞ্জ করে।
ক্ষমতায়নের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য : নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য/উদ্দেশ্যসমূহ নিম্নরূপ
১. পিতৃতান্ত্রিক মতাদর্শ ও নারীর অধস্তনতার অনুশীলনকে চ্যালেঞ্জ এবং রূপান্তর করা।
২. কাঠামো, ব্যবস্থা ও প্রতিষ্ঠান-যা নারীর প্রতি বৈষম্যকে সমন্বিত এবং জোরদার করে তা পরিবর্তন করা। যেমন— পরিবার, শ্রেণি, জাতিবর্ণ প্রথা, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক কাঠামো, প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয়
শিক্ষাব্যবস্থা, প্রচারমাধ্যম, আইন এবং উপর-নিচ উন্নয়ন মডেল ইত্যাদিসহ সবকিছু রূপান্তর করা।
৩. বস্তুগত সম্পদ ও জ্ঞান সম্পদের উপর অভিগম্যতা ও নিয়ন্ত্রণ। নারীর ক্ষমতায়ন পুরুষকেও ক্ষমতায়ন করবে। নারীর ক্ষমতায়ন প্রক্রিয়া পুরুষের বিরুদ্ধে নয়, পিতৃতান্ত্রিক ব্যবস্থা এবং এর সকল প্রকার প্রকাশের বিরুদ্ধে। নারীর ক্ষমতায়ন পুরুষকেও মুক্ত করবে। তারা নির্যাতন ও শোষণকারীর ভূমিকা থেকে মুক্তি পাবে। বিদ্যমান সমাজে পুরুষের দায়িত্ব বলে যে সকল কাজ আছে, সে সকল কাজ থেকে মুক্তি পাবে। এতে করে পুরুষেরা গৃহকাজ এবং শিশু প্রতিপালনে অংশ নেবে। বিনিময়ে নারীরাও পুরুষের কাঁধে চাপানো সনাতন দায়িত্ব পালনে অংশ নেবে।
৪. নারীর সুপ্ত প্রতিভা ও সম্ভাবনার বিকাশও নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্য।
উপসংহার : সবশেষে বলা যায়, সমাজের পূর্ণাঙ্গ ও সফল উন্নয়নের জন্য নারীর ক্ষমতায়ন অপরিহার্য। সমাজের অর্ধাংশ অর্থাৎ নারীসমাজকে পিছনে ফেলে দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। আর এ কারণে নারীর ক্ষমতায়ন প্রয়োজন।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!