Answer

সমাজ পরিবর্তনের সংজ্ঞা দাও। গ্রামীণ বাংলাদেশের সামাজিক পরিবর্তন সম্পর্কে আলোচনা কর ।

অথবা, সামাজিক পরিবর্তন বলতে কী বুঝ? বাংলাদেশের গ্রামীণ সমাজের সামাজিক
পরিবর্তনের ধারা আলোচনা কর।
অথবা, সামাজিক পরিবর্তন কী? গ্রামীণ বাংলাদেশের সামাজিক পরিবর্তন সম্পর্কে বর্ণনা কর।
অথবা, সমাজ পরিবর্তন কী? বাংলাদেশের গ্রামীণ সমাজ পরিবর্তনের ধারা বর্ণনা কর।
অথবা, সমাজ পরিবর্তন কাকে বলে? বাংলাদেশে গ্রামীণ সমাজের সামাজিক পরিবর্তন সম্পর্কে আলোচনা কর।
উত্তর।৷ ভূমিকা :
সমাজ পরিবর্তনশীল। এ পরিবর্তনশীলতার হার সময় ও সমাজভেদে ভিন্নতর হতে পারে। অর্থাৎ কোনো সমাজই স্থবির নয়। মানুষের ক্রিয়াকর্ম, ব্যক্তিগত জীবনধারা ও আচরণ পদ্ধতি প্রভৃতি কারণে সমাজে অনিবার্যভাবে পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগে। অনুরূপভাবে বাংলাদেশের বৃহত্তর গ্রামীণ সমাজে রদবদল বা পরিবর্তন বিশেষভাবে লক্ষণীয়। সমাজের এ আবশ্যিক পরিবর্তনে মানুষ ক্রমশ উন্নততর পর্যায়ে বা সভ্য অবস্থায় উপনীত হয়েছে। পাশাপাশি মানুষ তার নিজস্ব সমাজ সংস্কৃতির অনেকটাই পরিবর্তনের ধাক্কায় হারিয়ে ফেলছে।
সমাজ পরিবর্তন (Social change): সমাজের বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠান যেমন- অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক, শিক্ষাগত, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় ইত্যাদির মধ্যে রদবদল, সমাজ মানুষের সামাজিক সম্পর্ক (Social interaction) তথা সমাজকাঠামোর মধ্যকার সার্বিক রদবদল বা পরিবর্তনই সমাজ পরিবর্তন।
প্রামাণ্য সংজ্ঞা : বিভিন্ন তাত্ত্বিক ও সমাজবিজ্ঞানী সমাজ পরিবর্তনকে সংজ্ঞায়িত করার প্রয়াস পেয়েছেন। নিে
এ বিষয়ে আলোচনা করা হলো:
বিখ্যাত তাত্ত্বিক Kingsley Davis তাঁর ‘FHuman society’ গ্রন্থে বলেছেন, “সামাজিক পরিবর্তন বলতে সামাজিক সংগঠনের মধ্যে সংঘটিত রূপান্তরকে বুঝায়। আসলে বৃহত্তর দৃষ্টিকোণ থেকে সমাজের কাঠামো ও ক্রিয়ার ক্ষেত্রে রূপান্তরকেই মূলত সামাজিক পরিবর্তন বলা হয়।” [By social change is meant only such alteration as occur in social organisation, that is, structure and functions of society.]
Jones (জোন্স) তাঁর ‘Basic Sociological Principles’ শীর্ষক গ্রন্থে বলেছেন, “সামাজিক পরিবর্তন এ একটি শব্দ, যা সামাজিক প্রক্রিয়া, সামাজিক ধরন, সামাজিক মিথস্ক্রিয়া কিংবা সামাজিক সংগঠনের যে কোনো রূপান্তরের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।” [Social change is a term used to describe variations in or modifications of any aspect of social processes, social patterns, social interaction or social organisation.)
R. M. Maclver and C. H. Page বলেছেন, “সমাজবিজ্ঞানীদের প্রত্যক্ষ আলোচ্য বিষয় হলো সামাজিক সম্পর্কের বিভিন্ন রূপ। সেজন্য উক্ত সম্পর্কের ক্ষেত্রে যে রূপান্তর সেটাকেই আমরা কেবল সামাজিক পরিবর্তন বলতে পারি।” [Our direct concern as sociologists with social relationships. It is the change in these relationships which alone we shall regard as social change. (Society, P.511)]
‘Cultural Sociology’ শীর্ষক গ্রন্থে Gillin and Gillin বলেছেন, “সামাজিক পরিবর্তন হচ্ছে গ্রহণযোগ্য জীবন
পদ্ধতির ক্ষেত্রে রূপান্তর, যা ভৌগোলিক, সাংস্কৃতিক, জনতাত্ত্বিক এবং মতাদর্শগত কারণে সংঘটিত হতে পারে। আর এসব পরিবর্তন যে কোনো সামাজিক গোষ্ঠীর অভ্যন্তরে সাংস্কৃতিক ব্যাপ্তি কিংবা উদ্ভাবনের ফলে ঘটতে পারে।” [ Social changes are variations from the accepted modes of life; whether due to alteration in geographical
conditions in cultural equipment, composition of the population, or ideologies and whether brought about by diffusion or inventions within the group.l
M. Ginsberg মন্তব্য করেছেন, “সামাজিক পরিবর্তন বলতে সমাজকাঠামোর পরিবর্তনকে বুঝায়। আর সামাজিক কাঠামো হচ্ছে সমাজের আকৃতি, গড়ন অথবা এর সকল অংশের মধ্যে বিদ্যমান ভারসাম্য।” [By social change, I understand a change in social structure, e.g. the size of the society, the composition or balance of its parts or the type of its organisation.]
উপর্যুক্ত সংজ্ঞাসমূহের আলোকে আমরা বলতে পারি যে, সামাজিক পরিবর্তন হচ্ছে মানবসমাজের প্রাতিষ্ঠানিক ও মূল্যমানগত কাঠামোতে পরিবর্তন। অর্থাৎ সামাজিক পরিবর্তন হচ্ছে সমাজবদ্ধ মানুষের জীবনধারার প্রচলিত প্রাতিষ্ঠানিক অবস্থা, বৈষয়িক আচরণ ও ধরনসমূহের পরিবর্তন।
বাংলাদেশের গ্রাম সমাজের সামাজিক পরিবর্তন (Social change in rural society of Bangladesh) : বাংলাদেশ বিশ্বের বৃহত্তম ব-দ্বীপ। তাই বহুপূর্বেই এখানে কৃষি উৎপাদন শুরু হয় এবং বৃহৎ সাম সম্প্রদায় গড়ে উঠে। গত তিন দশকে গ্রামবাংলার মানুষের সমাজজীবনে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হয়েছে। এ পরিবর্তন এসেছে এদেশের গ্রাম সমাজের প্রধান প্রধান অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠান, যেমন- অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক, শিক্ষা, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে।
ক. অর্থনৈতিক পরিবর্তন (Change in rural economy) : স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে যদিও সুসংবদ্ধভাবে অর্থনৈতিক পরিকল্পনা প্রণীত হয় নি, কিংবা প্রণীত হলেও বাস্তবায়িত হয় নি, তবুও বিশেষ করে কৃষিক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত উৎপাদন বাংলাদেশের গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর আর্থিক ক্ষেত্রে বিরাট প্রভাব ফেলছে। অর্থনৈতিক অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠানের কাঠামো ও কার্যাবলি সম্পর্কে নিয়ে আলোচনা করা হলো।
১. ভূমি সম্পর্ক (Land relation) : বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরিবার প্রতি কৃষি জমির পরিমাণ প্রথমে ১০০ বিঘা এবং পরে ৭৫ বিঘারও কমে ৬০ বিঘায় সিলিং করা হয়েছে। বর্গাচাষিদের স্বার্থ রক্ষায় সরকার কিছু বিধান জারি করেছে। যেমন- জমির মালিক আনুপাতিক হারে জমিতে বীজ সরবরাহ করলে উৎপাদিত ফসলের অর্ধেক পাবেন।বর্গাচাষি বীজ সরবরাহ করলে ফসলের দুই-তৃতীয়াংশ আর বর্গাদার এক-তৃতীয়াংশ পাবেন।
২. অর্থনৈতিক পেশা (Economical occupation) : গ্রামবাংলার গড়পড়তা আয় খানা প্রতি ৯২৭ ডলার থেকে ১০ ডলারে পৌঁছেছে। অর্থাৎ ১৯৮৭-৮৮ থেকে ১৯৯৯-২০০০ নাগাদ বার্ষিক প্রবৃদ্ধির হার ৩.২ শতাংশ। আয়ের বান উৎসগুলো হচ্ছে ব্যবসায় ও বাণিজ্য, প্রেরিত অর্থ (remittance) এবং ধানবহির্ভূত কৃষি। গ্রাম এলাকায় দিনদিন বিচিত্র অকৃষি পেশার সৃষ্টি হয়েছে।এছাড়া আগের তুলনায় গ্রামাঞ্চলে বর্তমানে শ্রমবিভাগ এবং শ্রমের মূল্য ও মর্যাদা
(Division of labour and Dignity of labour) বৃদ্ধি পেয়েছে।
৩. জীবনযাত্রার মান (Standard of living) : গ্রামীণ মানুষের জীবনযাত্রার উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন লক্ষণীয়।কারণ বর্তমানে গ্রামে শিক্ষিতের হার বাড়ছে। শিক্ষিত যুবকরা কর্মসংস্থানের পথ খুঁজে পেয়েছে। গ্রামীণ মেয়েরা শহরের বাসাবাড়ি এবং গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে কাজ খুঁজে পেয়েছে। কৃষি মজুরের বেতনের পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছে। আগের দিনে গ্রামীণ মানুষ মাটি ও কাসার তৈজসপত্র ব্যবহার করত। কিন্তু এখন ঐসবের স্থান দখল করেছে চিনামাটির এবং কাচের তৈজসপত্র। শহরের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক ডিজাইনের আসবাবপত্র এখন গ্রাম সমাজে ব্যবহার দেখা যায়।
খ. সামাজিক পরিবর্তন (Social change in rural) : সামাজিক অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাদের গ্রামীণ পরিবার কাঠামোয় তেমন কোনো পরিবর্তন দেখা যায় না। তবে পরিবারের কিছু কিছু ক্ষেত্রে (বিবাহ ও বিবাহবিচ্ছেদ) পরিবর্তন তাৎপর্যপূর্ণ। বলা যায়, গ্রামীণ পরিবারের মূল্যবোধে ও বংশ মর্যাদায় পরিবর্তন এসেছে এবং গ্রামের মেয়েদের ক্ষমতায়ন সহজতর হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ক্ষেত্রে পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। যেমন-
১. যৌথ পরিবারে ভাঙ্গন (Break in joint family) : গ্রামের নারী-পুরুষ পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কে সচেতন হওয়ার ফলে, বৈবাহিক জীবনে তারা অধিক সন্তান নিতে আগ্রহী হচ্ছে না। এছাড়া কাজের সন্ধানে গ্রামের লোকজন শহরের আবাস গড়ার ফলে গ্রামীণ যৌথ পরিবারগুলোতে ভাঙ্গন অনিবার্য হয়ে উঠছে।
২. পারিবারিক আদালত (Family court) : পারিবারিক আদালত স্থাপিত হওয়ার ফলে গ্রামের নারীরা তাদের অধিকার ও মর্যাদা সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠছে।
৩. বিবাহের ক্ষেত্রে পরিবর্তন (Change in marriage system) : গ্রামের বাবা মা তাদের সন্তানদের বিবাহের পাত্রপাত্রী নিজেরাই ঠিক করছেন। তবে কিছু ক্ষেত্রে গ্রামের শিক্ষিত যুবকরা প্রেম প্রণয় বা নিজেদের পছন্দের মাধ্যমে পাত্রী নির্বাচন করছেন। এছাড়া গ্রাম এলাকায় বহুস্ত্রী গ্রহণ প্রথা (Polygamy) অনেকটা কমে এসেছে। বলা প্রয়োজন, গ্রামের হওয়া পর্যন্ত পাত্রপক্ষের দেয়া কাপড় গহনা ছেলেমেয়েদের বিয়ের বয়সও দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগের দিনে বিয়ে পাত্রী পরত না। কিন্তু এখন পাত্রীরা গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানেই তা ব্যবহার করছে। বিয়ের আলোকচিত্র (video) ধারণ একটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন।
৪. যৌতুক প্রথা ও বিবাহবিচ্ছেদ (Dowry and divorce) : গ্রামাঞ্চলে যৌতুক একটি সামাজিক ব্যাধি হিসেবে দেখা দিয়েছে। গ্রামের দরিদ্র পরিবারগুলো পাত্রপক্ষের বরপণ বা যৌতুকের দাবি মিটাতে না পেরে তাদের কন্যাদের বিবাহ দিতে পারছে না। আবার কিছু ক্ষেত্রে বিবাহের পরেও পাত্রপক্ষের অতিরিক্ত দাবি না মিটাতে পারার ফলে তালাক বা বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনা ঘটছে।
গ. রাজনৈতিক অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠানে পরিবর্তন (Change in political institutions) : বাংলাদেশের গ্রামীণ সমাজে গত কয়েক বছরে রাজনৈতিক ব্যবস্থায় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। যেমন-
১. শিক্ষিত শ্রেণির আবির্ভাব (Rising of educated class) : পাড়াগ্রামে সাধারণত বয়স্ক ধনী কৃষক মোড়ল হিসেবে নেতৃত্ব দেন। তবে সেখানে আজকাল অনেক শিক্ষিত যুবকও নেতৃত্ব দেয়া শুরু করেছে। গ্রামাঞ্চলে স্থানীয় সরকারের কর্মতৎপরতা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। উল্লেখ্য যে, ২০০৩ সালের ২ আগস্ট সারাদেশে প্রায় ৪০ হাজার গ্রাম সরকার গঠন করা হয়।
২. অধিকার সচেতনতা (Consciousness of right) : গ্রামের বিভিন্ন পর্যায়ের বা শ্রেণির মানুষের মধ্যে রাজনৈতিক অধিকার সচেতনতা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কোনো দলের কি ইশতেহার, তাদের উদ্দেশ্য এবং উদ্দেশ্য অর্জনের উপায় প্রভৃতি সম্পর্কে গ্রামের সচেতন শ্রেণি নিয়মিত খোঁজখবর রাখছেন। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা প্রভৃতি কাজে গ্রামের মানুষ সক্রিয় অংশগ্রহণ করছে।
ঘ. শিক্ষা ক্ষেত্রে পরিবর্তন (Change in education system) : গ্রামের ছেলেমেয়েদের শিক্ষাব্যবস্থায় আজ পর্যন্ত কোনো বৈপ্লবিক বা ইতিবাচক পরিবর্তন সূচিত হয় নি। গ্রামাঞ্চলের স্কুলগুলোয় যোগ্য শিক্ষকের অভাব, পুস্তক বা বইপত্রের অভাব, পড়ালেখার খরচ প্রভৃতি কারণে অধিকাংশ পরিবারের ছেলেমেয়ে শিক্ষা অর্জনে আগ্রহী হয় না। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন শিক্ষা কর্মসূচি চালু করা সত্ত্বেও গ্রামীণ এলাকায় শিক্ষাগত পরিবর্তন মোটেই সন্তোষজনক নয়।
ঙ. সাংস্কৃতিক পরিবর্তন (Change in rural culture) : আমাদের গ্রামের জীবনযাত্রা প্রণালিতে নগর সমাজের
প্রভাব খুবই সুস্পষ্ট। গ্রামের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবর্তন, যেমন- (givil to bebrter)
১. বস্তুগত ও অবস্তুগত সংস্কৃতিতে পরিবর্তন: গ্রামাঞ্চলে আগের দিনের মাটির তৈজসপত্রের স্থলে এসেছে টিন বা অ্যালুমিনিয়ামের তৈজসপত্র। আধুনিক মডেলের চেয়ার, খাট, টেবিল প্রভৃতি লক্ষ্য করা যায়। এছাড়া অনুষ্ঠান আয়োজন, পোশাক পরিচ্ছদ, সামাজিক মর্যাদা প্রভৃতি বিষয়েও পরিবর্তন এসেছে।
২. চিত্তবিনোদন (Entertainment) : গ্রামে জারি, মুর্শিদি ও যাত্রাগানের প্রচলন বেশ কমে আসছে। ফলে চিত্তবিনোদনের প্রাচীন মাধ্যমগুলো ক্রমশ গুরুত্বহীন হয়ে পড়ছে।
চ. ধর্ম ও মূল্যবোধের পরিবর্তন (Change in religion and prestige) : গ্রাম অঞ্চলে আজও সামাজিক নিয়ন্ত্রণ কাজে সব ধর্মেরই স্ব-স্ব প্রভাব সুস্পষ্ট। গ্রাম সমাজ ধর্ম-চরিত্র গঠনে, অসৎ অন্যায় কর্ম থেকে জনসাধারণকে দূরে রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করছে। বাংলাদেশের গ্রাম সমাজের মানুষের মূল্যবোধের বিকাশের পাশাপাশি নৈতিকতা ও মূল্যবোধের অবক্ষয় প্রকট হয়ে দেখা দিচ্ছে। বস্তুত গ্রামীণ রাজনীতির (Village politics) কারণে গ্রামাঞ্চলে অরাজকতা ও অস্থির পরিবেশ বিরাজ করছে।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, গ্রামীণ বাংলাদেশের সামাজিক পরিবর্তন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার প্রেক্ষিতে আমরা বলতে পারি যে, গত তিন দশকের পরিবর্তন আপেক্ষিক অর্থে খুব খাটো করে দেখবার নয়, যদিও আরও অনেক বেশি পরিবর্তন ছিল প্রত্যাশিত এবং সম্ভাবনা হাতের নাগালের মধ্যে। যাহোক, গ্রামাঞ্চলে কৃষিক্ষেত্রে যান্ত্রিক চাষাবাদের প্রচলন,শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বৃদ্ধি, ১৯৮২ সালে প্রশাসনিক পুনর্গঠন ও সংস্কারের উদ্দেশ্যে উপজেলা প্রশাসন কাঠামো গঠন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিদ্যার প্রচলন প্রভৃতি কারণে গ্রামীণ সমাজের বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। শুধু অনুষ্ঠান প্রতিষ্ঠান নয়, গ্রামীণ মানুষের সামাজিক সম্পর্ক ও দৃষ্টিভঙ্গিতেও এ পরিবর্তন লক্ষণীয়।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!