Answer

মাঠকর্মের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কী কী? বর্ণনা কর।

অথবা, মাঠকর্ম অনুশীলনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে আলোচনা কর।
অথবা, ব্যবহারিক প্রশিক্ষণের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে আলোচনা কর।
উত্তরা৷ ভূমিকা :
একটি সাহায্যকারী পেশা হিসেবে সমাজকর্মের কতকগুলো লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য রয়েছে।বিভিন্ন সংস্থা ও মনীষীগণ মাঠকর্ম অনুশীলনের বিভিন্ন লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের কথা বলেছেন।
মাঠকর্মের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য : নিম্নে সমাজকর্মে মাঠকর্ম অনুশীলনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য উল্লেখ করা হলো:
১. সমাজকর্মের আদর্শ ও মূল্যবোধ প্রয়োগ করা : মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে সমাজকর্মের নিজস্ব আদর্শ মূল্যবোধ, দর্শন, নীতিমালা, প্রক্রিয়া ও কলাকৌশল কর্মক্ষেত্রে প্রয়োগ করা।
২. কার্যকারিতা যাচাই : সমাজকর্মের বা সমাজকল্যাণের তত্ত্ব, ধারণা ও নীতি, মূল্যবোধ, জ্ঞান, পদ্ধতি, প্রক্রিয়া ও কলাকৌশল, ব্যক্তি, দল ও সমষ্টির উন্নয়ন ও কল্যাণ এবং সমস্যা সমাধানে বাস্তবে প্রয়োগের পাশাপাশি এগুলোর কার্যকারিতা যাচাই করা।
২. প্রতিষ্ঠানের নীতি ও কর্মসূচি : প্রতিষ্ঠানের নীতি, কর্মসূচি ও প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো সম্পর্কে অভিজ্ঞতা অর্জন করা মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ।
৪. কর্ম প্রক্রিয়া : ব্যবহারিক ক্ষেত্রে কাজ করে প্রাতিষ্ঠানিক বা সংগঠনের প্রশাসনিক কাঠামো এবং কর্ম প্রক্রিয়া সম্বন্ধে অবহিত হওয়া মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ।
৫. বস্তুনিষ্ঠ জ্ঞান অর্জন : মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে সমষ্টির অবস্থান, সমস্যা, সমাজ কাঠামো ইত্যাদি সম্পর্কে বস্তুনিষ্ঠ জ্ঞান অর্জন করা।
৬. সমস্যা সমাধানের উপযোগী করে তোলা : মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে সমাজকর্মে অনুসৃত বিভিন্ন পদ্ধতি, যেমন- ব্যক্তিকেন্দ্রিক সমাজকর্ম, দলকেন্দ্রিক সমাজকর্ম, সমষ্টি উন্নয়ন ও সংগঠন এবং সাহায্যকারী পদ্ধতিগুলোকে ব্যক্তি, দল ও সমষ্টিগত সমস্যা সমাধানের উপযোগী করে তোলা ।
৭. সমাজের বাস্তব তথ্য : মাঠকর্মের মূল লক্ষ্য হলো সমাজের বাস্তব অবস্থা সম্পর্কে অবগত হওয়া । সমাজ, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অন্যান্য সমস্যা সমাধানের জন্য বাস্তব অবস্থা সম্পর্কে তথ্যসংগ্রহ করতে সাক্ষাৎকার, পর্যবেক্ষণ, প্রশ্নমালা অনুসূচি, জরিপ প্রভৃতি পদ্ধতির সাহায্য নেয়া হয় ।
৮. হাতেকলমে শিক্ষাদান : সমাজকর্মের শিক্ষার্থীদের তাত্ত্বিক জ্ঞানকে কাজে লাগানোর জন্য মাঠকর্মের মাধ্যমে তাদের হাতেকলমে শিক্ষাদান করা হয়। এর ফলে শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি পায়।
৯. সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা : মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দশ্যে হচ্ছে সমাজকল্যাণ ও সমাজসেবামূলক প্রতিষ্ঠানের সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করা ।
১০. ত্রুটিবিচ্যুতি সংশোধন : সমাজকল্যাণের তত্ত্ব, ধারণা, নীতি ও পদ্ধতি প্রয়োগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের কলাকৌশল প্রয়োগের যেসব ত্রুটিবিচ্যুতি দেখা যায় তা সংশোধন করাও মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দশ্য ।
১১. পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্য অর্জন : মাঠকর্ম অনুশীলনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্য অর্জন করতে সক্ষম হয়। শিক্ষার্থীর তাদের তাত্ত্বিক জ্ঞানকে বাস্তবে প্রয়োগের জন্য দক্ষতা ও নৈপুণ্য অর্জনের প্রশিক্ষণ পেয়ে থাকে মাঠকর্মের মাধ্যমে।
১২. দক্ষ সমাজকর্মী সৃষ্টি : মাঠকর্মের আরেকটি উদ্দেশ্য হলো দক্ষ ও অভিজ্ঞ সমাজকর্মী তৈরি করা।সমাজকর্মের পেশাগত মূল্যবোধ ও নীতিমালা অনুশীলনের মাধ্যমে পেশাগত জ্ঞান সম্পন্ন দক্ষ সমাজকর্মী গড়ে তোলা যায়।
১৩. সমাজকর্মের প্রয়োগ কৌশল জানা : সমাজকর্মের মৌলিক ও সহায়ক পদ্ধতির সমন্বিত প্রয়োগ কৌশল সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করা মাঠকর্ম অনুশীলনের আরেকটি লক্ষ্য।
১৪. আত্মসচেতনতা সৃষ্টি : ব্যবহারিক ক্ষেত্রে অপরের সাহায্যকারী হিসেবে আত্মসচেতনতা সৃষ্টি এবং নিজেকে সে ক্ষেত্রে প্রয়োগ উপযোগী করাও মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।
১৫. কর্মস্পৃহা জাগ্রত করা : মাঠকর্ম শিক্ষার্থীদের মধ্যে কর্মস্পৃহা জাগ্রত করে এর ফলে শিক্ষার্থী উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণের অনুপ্রেরণা লাভ করে থাকে।
১৬. প্রশিক্ষণার্থীদের সক্ষম করে তোলা : মাঠকর্ম অনুশীলনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীরা সমাজকর্মের জ্ঞান সম্পর্কে অবগত হয় এবং এ জ্ঞানকে কাজে লাগানোর জন্য সক্ষমতা অর্জন করে।
১৭. দায়িত্ববোধ : মাঠকর্ম অনুশীলনের আরেকটি লক্ষ্য হলো এটি শিক্ষার্থীদের মধ্যে সামাজিক দায়িত্ববোধের চেতনা জাগ্রত করে। ফলে শিক্ষার্থীদের সেবার মনোভাবের বিকাশ ঘটে। অন্যদিকে, সমাজকর্মীরাও এর মাধ্যমে অধিক দায়িত্ববোধের পরিচয় দিতে পারেন।
১৮. কাজের সমন্বয়সাধন : সমাজকর্মের তাত্ত্বিক জ্ঞান ও ব্যবহারিক জ্ঞানের মধ্যে মাঠকর্ম অনুশীলন সমন্বয় ঘটিয়ে থাকে।অর্থাৎ মাঠকর্মের প্রধান লক্ষ্যই হলো সমন্বয়ের মাধ্যমে সুষ্ঠুভাবে কার্যসম্পাদন করা।
১৯. নতুন নতুন চিন্তাভাবনার বিকাশ ঘটানো : মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে বাস্তব অবস্থায় বিশেষ কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে নতুন নতুন চিন্তাভাবনার বিকাশ ঘটানো ও সমস্যা সমাধানকল্পে নতুন নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করা এবং বাস্তবতার নিরিখে তা প্রয়োগ করা ।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা থেকে বলা যায় যে, মাঠকর্মের শিক্ষার্থীদের জ্ঞান, দক্ষতা, অভিজ্ঞতা ও নৈপুণ্যতা বৃদ্ধি পায় এবং শিক্ষানবিস সমাজকর্মীরা সমাজকর্মের নীতি, মূল্যবোধ ও কৌশল সম্পর্কে প্রয়োগ করতে সক্ষমতা অর্জন করে।তাছাড়া সাক্ষাৎকার, পর্যবেক্ষণ, গৃহপরিদর্শন ইত্যাদি ক্ষেত্রে দক্ষতা বৃদ্ধিতেও মাঠকর্ম অনুশীলন আমাদের সাহায্য করে।এটি বাস্তবক্ষেত্রে জ্ঞান অর্জন করে সমাজসেবায় আত্মনিয়োগ করতেও নবীন সমাজকর্মীদের সাহায্য করে।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!