ডিগ্রি ২য় বর্ষ(২০১৯-২০) নিয়মিত ও প্রাইভেট শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফরম পূরণ চলবে ৭/০২/২০২৩ থেকে ৭/০৩/২০২৩ পর্যন্ত। *পরীক্ষা হবে কেন্দ্র খালি থাকলে এপ্রিলের শুরুতে বা ঈদের পরপরই। কলেজসমূহে ফরম পূরণ ফি ১৫০০ এর মধ্যে।

বাঙালি দর্শনের স্বরূপ সংক্ষেপে বর্ণনা কর।

অথবা, বাঙালি দর্শনের প্রকৃতি সংক্ষেপে আলোচনা কর।
অথবা, বাঙালি দর্শনের স্বরূপ সংক্ষেপে ব্যাখ্যা কর।
অথবা, বাঙালির দর্শনের প্রকৃতি সংক্ষেপে ব্যাখ্যা কর।
উত্তর।৷ ভূমিকা :
বাঙালি দর্শন একটি প্রাচীন দর্শন। বাঙালির ধ্যানধারণা, চিন্তা, মনন, ভাবধারা, মতামত, ধর্ম,রাজনীতি, অর্থনীতি, সংস্কৃতি প্রভৃতিকে কেন্দ্র করে বাঙালি দর্শন গড়ে উঠেছে। বাংলা ও বাংলার সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের বৈচিত্র্যময় রূপ ও রসের মাধুর্যে আপ্লুত হয়ে মরমি চেতনায় উদ্বুদ্ধ যে দর্শন তাই বাঙালি দর্শন।
বাঙালি দর্শনের স্বরূপ বা প্রকৃতি : বাঙালি জাতি বিভিন্ন জাতি গোষ্ঠীর সংমিশ্রণের ফল হওয়ায় তাদের চিন্তার জগতেও নানা ধরনের প্রবণতা লক্ষ করা যায়। অনেকে মনে করেন বাঙালির দর্শনচিন্তায় শুদ্ধ চর্চার ঐতিহ্য বিশেষ পরিপুষ্ট নয়। তবে বাঙালি দর্শনের ইতিহাস ঐতিহ্য পর্যালোচনা করলে সমালোচকদের অভিযোগ অযথার্থ বলেই মনে হয়।অনার্যরাই বাংলা বা বঙ্গ ভূখণ্ডে সর্বপ্রথম দার্শনিক চিন্তাধারার সূত্রপাত করে। তাদের দর্শনকে লোকায়ত দৰ্শন বলা হতো। তারা জড়বাদী বা বস্তুবাদী দর্শন প্রচার করতো এবং প্রত্যক্ষণকে জ্ঞানের উৎস বলে মনে করতো। এ সময়
অধ্যাত্মবাদী বা ভাববাদী চিন্তাধারাও বিদ্যমান ছিল। বৈদিক সাহিত্যের যুগে বস্তুবাদ ও অধ্যাত্মবাদ উভয় মতবাদই প্রচলিত ছিল। আর্যদের আগমনের পর থেকে ভাববাদের বেশি চর্চা হয়। এ সময় বেদ বিরোধী নাস্তিক দর্শন তত্ত্ব প্রচার করেন জৈন ও বৌদ্ধ দার্শনিকগণ। তবে বাঙালি দর্শনে বৌদ্ধ প্রভাবই ছিল সর্বাধিক। এ সময় হিন্দু বা সনাতন ধর্মের মূল গ্রন্থসমূহকে কেন্দ্র করে ষড়দার্শনিক সম্প্রদায়ও দর্শন তত্ত্ব আলোচনা করে। এরপর বাঙালি দর্শনে ইসলামি ভাবধারার অনুপ্রবেশ ঘটে এবং মধ্যযুগীয় বাঙালি দর্শনকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে। মুসলমানদের মাধ্যমেই বাংলায় সুফিবাদের প্রসার ঘটে। এছাড়া বৈষ্ণববাদ, বাউলবাদও জনপ্রিয় তত্ত্বে পরিণত হয়। আধুনিক যুগে পাশ্চাত্য শিক্ষা লাভ করে দেশে ফিরে আসা বাঙালি চিন্তাবিদগণ পাশ্চাত্য দর্শন দ্বারা প্রভাবিত হয়ে দর্শন চর্চা শুরু করেন এবং বাঙালি দর্শনের সাথে পাশ্চাত্য দর্শনের সমন্বয়সাধন করে সমৃদ্ধ বাঙালি দর্শন প্রতিষ্ঠা করেন।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার আলোকে আমরা বলতে পারি যে, বাঙালি দর্শন হলো সমন্বয়ধর্মী দর্শন। বিভিন্ন যুগে বাঙালি দর্শনে বিভিন্ন দার্শনিক চিন্তার প্রভাব পড়েছে। আর এভাবেই বাঙালি দর্শনে বস্তুবাদ, ভাববাদ, মানবতাবাদ, মার্কসবাদ, উদারতা বা উপযোগবাদ, প্রত্যক্ষবাদ, কর্মবাদ, জন্মান্তরবাদ, মুক্ততত্ত্ব প্রভৃতি মতবাদ গড়ে উঠেছে।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!