ডিগ্রি ২য় বর্ষ(২০১৯-২০) নিয়মিত ও প্রাইভেট শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফরম পূরণ চলবে ৭/০২/২০২৩ থেকে ৭/০৩/২০২৩ পর্যন্ত। *পরীক্ষা হবে কেন্দ্র খালি থাকলে এপ্রিলের শুরুতে বা ঈদের পরপরই। কলেজসমূহে ফরম পূরণ ফি ১৫০০ এর মধ্যে।

নাইরোবি>তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলন ১৯৮৫ সংক্ষেপে আলোচনা কর।

অথবা, নারী উন্নয়নে নাইরোবি>তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলনের কর্মকৌশলগুলো কী কী?
অথবা, তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলন এ ঘোষিত কর্মসূচি ও কর্মকৌশল সম্পর্কে লিখ।
অথবা, তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলনে ঘোষিত কর্মসূচি ও কর্মকৌশল তুলে ধর।
উত্তর৷ ভূমিকা :
১৯৭৫ সালে নারী দশক ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই নারীর উন্নয়ন ও কল্যাণ সাধনে বাছাইকৃত ও অগ্রাধিকারভিত্তিক নির্দিষ্ট কিছু এজেন্ডা নিয়ে বিশ্ব নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৮৫ সালের জুলাই ১৫,-জুলাই ২৬ পর্যন্ত নারী দর্শকের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয় এবং নতুন কিছু নারী উন্নয়ন কর্মকৌশল ঘোষিত হয়। এ কর্মকৌশলগুলো ‘Forward Looking Strategies’ বা এগিয়ে চলার কৌশল নামে অভিহিত। নিম্নে এগুলো তুলে ধরা হলো :
তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলন এ ঘোষিত কর্মসূচি ও কর্মকৌশল : ১৯৮৫ সালের ১৫ জুলাই থেকে ২৬ জুলাই পর্যন্ত আফ্রিকা মহাদেশের দেশ কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে তৃতীয় বিশ্ব নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনে নারী দশকের সমাপ্তি পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। নারী দশকের অগ্রগতি নিয়ে এ সম্মেলনে পুনর্মূল্যায়ন করা হয়। ১২৪টি দেশের প্রাপ্ত রির্পোট বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে, নারী দশকের উদ্দেশ্য আংশিক অর্জিত হয়েছে এবং অনেক রাষ্ট্রে নারীর সমতার অনুপস্থিতি একটি গুরুতর সামাজিক সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। এ সম্মেলনেও কিছু কর্মকৌশল ঘোষিত হয়। যথা :
ক. রাজনৈতিক সদিচ্ছার ভিত্তিতে একটি আইন কাঠামো নিশ্চিত করে রাষ্ট্র নারী-পুরুষের সাম্য নিশ্চিত করবে।
খ. সরকার আইনের চোখে নারী-পুরুষের সাম্য নিশ্চিত করবে।
গ. সনাতনী ভাবাদর্শে নারীর অগ্রগতি ও উন্নয়নে যে বাধা তৈরি হয়েছে তা সম্পূর্ণরূপে দূর করা হবে।
ঘ. সমাজে নারীর অনানুষ্ঠানিক এবং অদৃশ্য অর্থনৈতিক ক্রিয়াকর্মের স্বীকৃতি নিশ্চিত করবে।
ঙ. নারীর বুদ্ধিভিত্তিক উন্নয়ন, নীতিনির্ধারণ এবং পরিকল্পনা প্রণয়নকারী হিসেবে উন্নত হতে সকল নারীকে কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।
চ. ফৌজদারি আদালত ব্যবস্থায় নারীর প্রতি ন্যায্য এবং সমআচরণ নিশ্চিত করা।
ছ. নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা দমনে সরকার অবশ্যই কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, লিঙ্গগত সমতা, নারীর ক্ষমতায়ন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও বৃদ্ধি, গৃহকর্মের স্বীকৃতিদান, শিক্ষার অগ্রগতির সাধনে অধিকার সচেতনতা বৃদ্ধি ইত্যাদিকে উপজীব্য করে যে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় তা নারী উন্নয়নের ক্ষেত্রে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে এবং ভবিষ্যতের কর্মপন্থা নির্ধারণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!