ডিগ্রী প্রথম এবং অনার্স দ্বিতীষ ২০২২-২৩ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে Whatsapp করুন: +8801979786079  

ডিগ্রী এবং অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ ২০২২ সকল বিষয়ের রকেট স্পেশাল সাজেশন ফাইনাল সাজেশন প্রস্তুত রয়েছে মূল্য মাত্র ২৫০টাকা প্রতি বিষয় এবং ৭ বিষয়ের নিলে ১৫০০টাকা। সাজেশন পেতে দ্রুত যোগাযোগ ০১৯৭৯৭৮৬০৭৯
অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন প্রকাশ হয়েছে আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে থেকে রকেট স্পেশাল সাজেশন পাবেন । @ রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে যোগাযোগ করুন সাজেশন মূল্য প্রতি বিষয় ২৫০টাকা। Whatsapp +8801979786079

ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষ পরীক্ষা ২০২২ বিষয় পদার্থবিজ্ঞান ষষ্ঠ পত্র রকেট স্পেশাল সাজেশন ৯০% কমন ইনশাল্লাহ

ক_বিভাগ (অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন)

১। ভর ত্রুটি কী?
উঃ কোন স্থায়ী নিউক্লিয়াসের ভর তার গঠনকারী উপাদানসমূহের মুক্ত অবস্থার ভরের যোগফল অপেক্ষা কিছুটা কম হয়। ভরের এই পার্থক্যকে ভরত্রুটি বা ভর ঘাটতি বলে।
২। ইলেকট্রন গ্রাস বলতে কী বুঝ?
উঃ ভারী নিউক্লিয়াসবিশিষ্ট পরমাণুর ইকেট্রনের কক্ষপথগুলো খুব কাছাকাছি থাকে এবং নিউক্লিয়াসের খুবই নিকটবর্তী হয়, তাই মাঝে মাঝে তেজস্ক্রিয় নিউক্লিয়াসের অতিরিক্ত পজিটিভ চার্জ কক্ষীয় ইলেকট্রন গ্রাস করে নিউট্রাল হয়। এ ঘটনাকে ইলেকট্রন গ্রাস বলে।
৩। ফোনন কী?
উঃ ল্যাটিস স্পন্দনে সৃষ্ট তরঙ্গের শক্তি কোয়ান্টায়িত হয়। তাড়িতচৌম্বক তরঙ্গের শক্তির কোন্টামকে যেমন ফোটন বলা হয়, তেমনি ল্যাটিস স্পন্দনের দরুন সৃষ্ট স্থিতিস্থাপক তরঙ্গের শক্তির কোয়ান্টামকে ফোনন বলে।
৪। আইসোবার কী?
উঃ যাদের নিউক্লিয়াসের ভরসংখ্যা বা পরমাণবিক ওজন একই কিন্তু পারমাণবিক সংখ্যা ভিন্ন তাদেরকে আইসোবার বলে।
৫। নিউক্লিয়াস কাকে বলে?
উঃ পরমাণুর সমস্ত ধনাত্মক আধান এবং এর ভর যে স্থানে কেন্দ্রীভূত থাকে তাকে নিউক্লিয়াস বলে ।
৬। পারমাণবিক সংখ্যা কাকে বলে?
উঃ নিউক্লিয়াসের প্রোটন সংখ্যাকে পারমাণবিক সংখ্যা বলে ।
৭। তাপ নিউক্লিয় বিক্রিয়া কী?
উঃ হাইড্রোজেনের আইসোটোপ ডিউটেরিয়াম ও ট্রিটিয়াম মিশ্রণের একটি প্লাজমার উষ্ণতার দশ কোটি কেলভিনে উন্নিত করলে এদের কিউক্লিয়াসের মধ্যে স্বনির্ভর বিক্রিয়া সংঘটিত হয় এবং 17.6 MeV শক্তির নির্গমন ঘটে। নির্গত শক্তির (17.6MeV) সিংহভাগই নিউট্রন কর্তৃক বাহিত হয়। অতিশয় উচ্চ তাপমাত্রায় নিউক্লিয়াসের এরূপ স্বনির্ভর ফিউশন বিক্রিয়াকে তাপ নিউক্লিয় বিক্রিয়া (Thermonuclear reaction) বলে ।
৮। নিউক্লিয় বল কী?
উঃ যে বল দ্বারা নিউক্লিয়াসের মধ্যে প্রোটন ও নিউট্রনসমূহ দৃঢ়ভাবে সংযুক্ত থেকে নিউক্লিয়াস গঠন করে তাকে নিউক্লিয়ার বল বলে।
৯। ক্রিস্টাল কী?
উঃ যে সকল কঠিন পদার্থের মধ্যে পরমাণুসমূহ সুশৃঙ্খল ও পর্যায়ক্রমিকভাবে সাজানো থাকে তাদেরকে ক্রিস্টাল বা কেলাস বা স্ফটিক বলে।
১০। ল্যাটিস ভাইব্রেশন বলতে কী বুঝ?
উঃ কঠিন পদার্থ অণু বা পরমাণু দ্বারা গঠিত। এগুলো কাছাকাছি অবস্থান করে পরস্পরকে আকর্ষণ করে। আবার এদের মধ্যকার দূরত্ব খুব কমে গেলে বিকর্ষণ বল ক্রিয়া করতে শুরু করে। এ পরমাণু বা আয়নসমূহের আকর্ষণ ও
বিকর্ষণজনিত মিথস্ক্রিয়ার কারণে এগুলো তাদের গড় অবস্থানের সাপেক্ষে স্পন্দিত হয়। এরূপ স্পন্দনকে বলা হয় ল্যাটিস ভাইব্রেশন বা ল্যাটিস স্পন্দন বা কম্পন বলে।
১১। বিপরীত ল্যাটিস কাকে বলে?
উঃ একটি সাধারণ মূল থেকে ক্রিস্টালের প্রত্যেক তলের উপর লম্ব অংকন করা হয়। মূল বিন্দু থেকে ……..দূরূত্বে প্রতিটি লম্বের উপর একটি করে বিন্দু নেওয়া হয়। এরূপ বিন্দুগুলো একটি পর্যায়ক্রমিক সজ্জা গঠন করে। এই সজ্জাকেই বলা হয় উল্টা ল্যাটিস।
১২। হল ক্রিয়া কী?
উঃ কোনো তড়িৎবাহী পরিবাহীকে তড়িৎ প্রবাহের দিকের সাথে সমকোণে স্থাপিত চৌম্বক ক্ষেত্রে রাখলে প্রবাহ ও চৌম্বকক্ষেত্র উভয়ের সাথে অভিলম্ব বরাবর একটি বিভব পার্থক্য সৃষ্টি হয়। এ প্রক্রিয়াকে হল ক্রিয়া বলে।
১৩। আইসোটোন কী?
উঃ সমসংখ্যাক নিউট্রনবিশিষ্ট নিউক্লিয়াসসমূহকে আইসোটোন বলে।
১৪। গামা ক্ষয় বলতে কি বুঝ?
উঃ নিউক্লিয় বিক্রিয়ার ফলে কিংবা আলফা বা বিটা অবক্ষয়ে উদ্ভূত নিউক্লিয়াসটি অনেক সময় একটি উত্তেজিত স্তরে অবস্থান করে। এই উত্তোজিত স্তর থেকে গামা রশ্মি বিকিরণের মাধ্যমে অপেক্ষাকৃত নিম্ন শক্তিস্তরে পরিবৃত্তি ঘটে। শক্তি হারানোর এই প্রক্রিয়াকে গামা ক্ষয় বা অবক্ষয় বলে।
১৫। মিলার সূচক কী?
উঃ ক্রিস্টাল তলের অবস্থান ও অবস্থিতি তিন সংখ্যার একটি সেট দ্বারা প্রকাশ করা হয়। একে মিলার সূচক বলে।
১৬। প্যাকিং ভগ্নাংশ কী?
উঃ কোনো নিউক্লিয়াসের ভরত্রুটি এবং ভর সংখ্যার অনুপাতকে প্যাকিং ভগ্নাংশ বলে।
১৭। ভারী পানি কী?
উঃ ভারী পানি হলো ভারী হাইড্রোজেন ও অক্সিজেনের সমন্বয়ে সৃষ্ট পদার্থ।
১৮। ফিউশন কাকে বলে?
উঃ যে প্রক্রিয়ায় দুটি হালকা নিউক্লিয়াস একত্রিত হয়ে অপেক্ষাকৃত ভারী একটি নিউক্লিয়াস গঠন করে তাকে নিউক্লিয়ার ফিউশন বলে।
১৯। ম্যাজিক সংখ্যা কী?
উঃ অনেক পরমাণুর নিউক্লিয়াসে জোড় সংখ্যক প্রোটন বা নিউট্রন থাকে আবার অনেক পরমাণুর নিউক্লিয়াসে বিজোড় সংখ্যক প্রোটন বা নিউট্রন থাকে। সাধারণত যে সকল পরমাণুর নিউক্লিয়াসে জোড় সংখ্যক প্রোটন বা নিউট্রন থাকে তারা অধিক স্থায়ী হয়। কিন্তু যে সকল পরমাণুর নিউক্লিয়াসে ২, ৮, ২০, ২৮, ৫০, ৮২ এবং ১২৬ সংখ্যক প্রোটন বা নিউট্রন থাকে তারা ব্যতিক্রমধর্মী স্থায়ী হয়। এই সংখ্যাগুলোকে ম্যাজিক সংখ্যা বলে।
২০। বিটা ক্ষয় কী?
উঃ তেজস্ক্রিয় পরমাণুর নিউক্লিয়াস থেকে স্ফূর্তভাবে একটি ইলেকট্রন বা পজিট্রন বেরিয়ে আসাকে বিটা ক্ষয় বলে।
২১। একক কোষ কী?
উঃ একক কোষ হলো একটি মৌলিক একক, যা ত্রিমাত্রিক পর্যায়বৃত্ত বিন্যাসের ফলে গঠিত কেলাস।
২২। মেডেলাং ধ্রুবক কী?
উঃ
২৩। গামা রশ্মি বলতে কী বুঝ?
উঃ আলফা বা বিটা ক্ষয়ের পর উত্তেজিত নিউক্লিয়াস তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণ নিঃসৃত করে ভূমি স্তরে গমন করে। এই নিঃসৃত তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণকে গামা রশ্মি বা গামা বিকিরণ বলে ।
২৪। সটকি ত্রুটি কী?
উঃ কোনো ক্রিস্টালের একটি পরমাণু তার যথাযথ স্থান থেকে বিচ্যুত হয়ে ক্রিস্টালের তলে অবস্থান করলে যে ত্রুটি হয় তাকে সটকি ত্রুটি বলে।
২৫। মিরর নিউক্লিয়াস কাকে বলে?
উঃ যে সকল পরমাণুর নিউক্লিয়াসের ভরসংখ্যা একই কিন্তু প্রোটন ও নিউট্রন সংখ্যা বিনিময়মূলক তাদেরকে মিরর নিউক্লিয়াস বলে।
২৬। তাপীয় নিউট্রন বলতে কি বুঝ?
উঃ নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় মন্থরকের একটি পরমাণুর যে তাপীয় শক্তি থাকে, ক্রমাগত শক্তি ক্ষয়ের ফলে নিউট্রনের শক্তি যখন সেই শক্তির সমান হয় সেই অবস্থাকে তাপীয় নিউট্রন বলে ।
২৭। প্যাকিং ভগ্নাংশ কাকে বলে?
উঃ কোনো ক্রিস্টালের পরমাণুসমূহ কর্তৃক অধিকৃত আয়তন এবং ক্রিস্টালের মোট আয়তনের অনুপাতকে প্যাকিং ভগ্নাংশ বলে।
২৮। নিউক্লিয়ন কাকে বলে?
উঃ নিউক্লিয়াসের গাঠনিক উপাদানসমূহকে নিউক্লিয়ন বলে ৷
২৯। আইসোমার কাকে বলে?
উঃ যে সকল পরমাণুর ভরসংখ্যা এবং পারমাণবিক সংখ্যা একই কিন্তু অভ্যন্তরীণ গঠন এবং তেজস্ক্রিয় ধর্ম ভিন্ন তাদেরকে আইসোমার বলে।
৩০। নিউক্লিয়াসের গড়ন কাকে বলে?
উঃ নিউক্লিয়াস প্রোটন ও নিউট্রন সমন্বয়ে গঠিত। প্রোট্রন ও নিউট্রনকে একত্রে নিউক্লিয়ন বলা হয়। নিউক্লিয়নসমূহ যেভাবে নিউক্লিয়াসে বণ্টিত থাকে তাকে নিউক্লিয়াসের গড়ন বলা হয়।
৩১। তেজস্ক্রিয়তা কি?
উঃ তেজস্ক্রিয় পরমাণু থেকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি নির্গমনের ঘটনাকে বলা হয় তেজস্ক্রিয়তা।
৩২। কৃত্রিম তেজস্ক্রিয় কী?
উঃ a-কণা নিউট্রন, প্রোট্রন এবং অন্যান্য কণা বিকিরণ কোন মৌলের উপর নিক্ষিপ্ত করে মৌলের মধ্যে যে তেজস্ক্রিয়তার আবেশ তৈরি করা হয় তাকে কৃত্রিম তেজস্ক্রিয়তা বলে।
৩৩। ১. কুরি কি?
উঃ কোনো তেজস্ক্রিয় নমুনা হতে প্রতি সেকেন্ডে 3.7 ×10° টি. ভাঙন ঘটলে ঐ নমুনার তেজস্ক্রিয়তাকে কুরি বা 1 কুরি বলে।
৩৪। গামা অবক্ষয় বা ক্ষয় বলতে কি বুঝ?
উঃ নিউক্লিয় বিক্রিয়ার ফলে কিংবা আলফা বা বিটা অবক্ষয়ে উদ্ভূত নিউক্লিয়াসটি অনেক সময় একটি উত্তেজিত স্তরে অবস্থান করে। এই উত্তোজিত
৩৫। প্রতিস্যাম্য অপারেশন কী?
উঃ প্রতিসাম্য ক্রিয়া বা অপারেশন বলতে এমন একটি প্রক্রিয়াকে বুঝায় যে প্রক্রিয়ায় ক্রিস্টাল রূপান্তরিত হয়ে আদি ক্রিস্টালই গঠন করে। অর্থাৎ প্রতিসাম্য অপারেশনে বা প্রতিসাম্য ক্রিয়ায় ক্রিস্টাল কাঠামো অভিন্ন থাকে।
৩৬। প্রতিস্যাম্য অপারেশন কী?
উঃ প্রতিসাম্য ক্রিয়া বা অপারেশন বলতে এমন একটি প্রক্রিয়াকে বুঝায় যে প্রক্রিয়ায় ক্রিস্টাল রূপান্তরিত হয়ে আদি ক্রিস্টালই গঠন করে। অর্থাৎ প্রতিসাম্য অপারেশনে বা প্রতিসাম্য ক্রিয়ায় ক্রিস্টাল কাঠামো অভিন্ন থাকে।
খ-বিভাগ (সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন)
১। ল্যাটিস তাপ ধারকত্বের ডিবাই মডেল আলোচনা কর। ১০০%
২। নিউক্লিয়াসের স্থৈতিক ধর্মগুলো লিখ। নিউক্লিয় ফিশান এর ক্ষেত্রে নির্গত শক্তির পরিমাণ নির্ণয় কর। ১০০%
৩। দেখাও যে, প্রতিটি উল্টো ল্যাটিস ভেক্টর ডাইরেক্ট ল্যাটিস তলের উপর লম্ব। ১০০%
৪। একটি ঘন ক্রিস্টালের ল্যাটিস ধ্রুবক বের কর যেখানে d110=3.25°A. ১০০%
৫। আলফা ক্ষয় একটি শক্তিশালী পরিক্রিয়া হলেও এতে দীর্ঘ সময় প্রয়োজন হয় কেন? ১০০%
৬। বিটা ক্ষয় কেন ঘটে? ব্যাখ্যা কর। বিটা রশ্মির বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর। বিভিন্ন ধরনের বিটা নিঃসরণের বর্ণনা দাও। ১০০%
৭। bcc ক্রিস্টালের প্যাকিং ভগ্নাংশ নির্ণয় কর। ১০০%
৮। নিউক্লিয় বল এর বৈশিষ্ট্য আলোচনা কর। ১০০%
৯। প্রমাণ কর যে, জোড় সৃষ্টির জন্য প্রয়োজনীয় সর্বনিম্ন শক্তির পরিমাণ 2 m°C2। ১০০%
১০। উচ্চ তাপমাত্রা ও নিম্নতাপমাত্রার ক্ষেত্রে ল্যাটিস তাপ ধারকত্বের আইনস্টাইন মডেলের ব্যর্থতা ও সাফল্য আলোচনা কর। ১০০%
১১। অর্ধায়ু এবং গড় আয়ু বলতে কি বুঝ? এদের মধ্যে সম্পর্ক নির্ণয় কর। ৯৯%
১২। ভ্যান্ডার ওয়ালস বন্ধন ও আয়নিক বন্ধনের পার্থক্য লিখ। ৯৯%
১৩। মিলার সূচক কী? (100), (200), (111) তলগুলো অংকন কর। ৯৯%

গ-বিভাগ (রচনামূলক প্রশ্ন)
১। (ক) নিয়ন্ত্রিত ও অনিয়ন্ত্রিত শৃঙ্খল বিক্রিয়া ব্যাখ্যা কর। নিউক্লিয় বলের সম্পৃক্তি ব্যাখ্যা কর। ১০০%
(খ) ক্রিস্টালের বিভিন্ন ধরনের বন্ধন ব্যাখ্যা কর। মুক্ত ইলেকট্রনের জন্য হল ভোল্টেজের রাশিমালা বের কর। ১০০%
২। (ক) ক্রিস্টাল দ্বারা x-রশ্মির অপবর্তনের ব্রাগের সূত্র প্রতিষ্ঠা কর। সংক্ষেপে NaCl এর গঠন আলোচনা কর। ১০০%
(খ) বিটা ক্ষয়ের জন্য ভরের শর্তের রাশিমালা প্রতিষ্ঠা কর। শূন্যস্থানে যুগল কণা উৎপাদন সম্ভব নয় কেন? ব্যাখ্যা কর। ১০০%
৩। (ক) নিউক্লিয়াসের ব্যাসার্ধ নির্ণয় কর। পারমাণবিক চুল্লীর ব্যবহার লিখ। ১০০%
(খ) একটি ঘন ক্রিস্টালের [100] ও [110] এর মধ্যবর্তী কোণ কত? ১০০%
৪। (ক) আপেক্ষিক তাপ সংক্রান্ত আইনস্টাইনের মডেলের সাফল্য ও ব্যর্থতাগুলো উল্লেখ কর। ১০০%
(খ) কঠিন বস্তুর আপেক্ষিক তাপ তত্ত্বের আইনস্টাইন তত্ত্ব ও ডিবাই তত্ত্বের মূল পার্থক্য উল্লেখ কর। ১০০%
৫। (ক) নিউক্লিয়াসে ইলেকট্রনের অস্তিত্ব থাকতে পারে না। প্রমাণ কর। অ্যালুমিনিয়াম (13A127) হাইড্রোজেন (1H1) নিউক্লিয়াসের ব্যাসার্ধের তুলনা কর। ১০০%
(খ) শেল মডেলের তত্ত্ব আলোচনা কর। যৌগিক নিউক্লিয়াস ও যৌগিক নিউক্লিয় বিক্রিয়া উদাহরণসহ ব্যাখ্যা কর। ১০০%
৬। (ক) 6C11 আইসোটোপটি ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে ;5B11 এ রূপান্তরিত হয়। নির্গত কণাটির নাম কি? আলফা ক্ষয়ের তত্ত্বটি আলোচনা কর। ১০০%
(খ) গামা রশ্মির শক্তির রাশিমালা প্রতিষ্ঠা কর। NaCl কাঠামোর আয়নিক ক্রিস্টালের মোট শক্তির রাশিমালা নির্ণয় কর। ১০০%
৭। (ক) দেখাও যে, fcc ল্যাটিসের উল্টা ল্যাটিস হোল bcc. ১০০%
(খ) তেজস্ক্রিয় ক্ষয় সূত্রটি বিবৃত ও প্রমাণ কর। গামা বিকিরণের তত্ত্ব আলোচনা কর। ১০০%
৮। (ক) বিটাক্ষয় শক্তিগতভাবে সম্ভব হওয়ার জন্য শর্তটি প্রতিপাদন কর। ১০০%
(খ) রেডিয়ামের অর্ধায়ু ২২ বছর। কত সময় পর এটি হ্রাস পেয়ে ২০% এ পৌছাবে? বিটাক্ষয়ের নিউট্রিনো তত্ত্ব আলোচনা কর। ১০০%
৯। (ক) কিউবিক ল্যাটিসের বৈশিষ্ট্যগুলি বর্ণনা কর। আদি কোষ ও নন-আদি কোষ ব্যাখ্যা কর। ১০০%
(খ) একটি নিউক্লিয়ার রি-এ্যাক্টরের ব্লক চিত্রসহ বর্ণনা দাও এবং কার্যপদ্ধতি আলোচনা কর। ১০০%
১০। (ক) উদাহরণসহ মিলার সূচক ব্যাখ্যা কর। ব্রাভাইস ল্যাটিসের শ্রেণিবিভাগ আলোচনা কর। ১০০%
(খ) আইনস্টাইন তত্ত্ব অনুসরণে ল্যাটিস তাপ ধারকত্বের রাশিমালা নির্ণয় কর। ১০০%
১১। (ক) শেল মডেলের সাফল্য ও ব্যর্থতা আলোচনা কর। তরল ফোটা মডেলের প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলো বর্ণনা কর। ৯৯%
(খ) একটি আয়নিক ক্রিস্টালের প্রতি অণুতে বন্ধন শক্তির রাশিমালা নির্ণয় কর। ৯৯%
১২। (ক) নিউক্লিয় বিক্রিয়ায় Q মান বলতে কী বুঝ? উদাহরণসহ ব্যাখ্যা কর। ৯৯%
(খ) নিউক্লিয়ন বন্ধন শক্তি এবং প্যাকিং ভগ্নাংশের পার্থক্য নির্দেশ কর। ৯৯%
১৩। (ক) আলফা ক্ষয়ের কারণ ব্যাখ্যা কর। ৯৯%
(খ) পদার্থের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় গামা রশ্মি কিভাবে বিক্রিয়া করে তা গুণগতভাবে আলোচনা কর। ৯৯%
১৪। (ক) আয়নিক ক্রিস্টালের আয়তন গুণাঙ্কের রাশিমালা প্রতিপাদন কর। ৯৯%
(খ) সংক্ষেপে হাইড্রোজেন বন্ধন আলোচনা কর। ল্যাটিস ভাইব্রেশন ও ফোনন ব্যাখ্যা কর। ৯৯%

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *