ডিগ্রি ২য় বর্ষ(২০১৯-২০) নিয়মিত ও প্রাইভেট শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফরম পূরণ চলবে ৭/০২/২০২৩ থেকে ৭/০৩/২০২৩ পর্যন্ত। *পরীক্ষা হবে কেন্দ্র খালি থাকলে এপ্রিলের শুরুতে বা ঈদের পরপরই। কলেজসমূহে ফরম পূরণ ফি ১৫০০ এর মধ্যে।

ডক্যুমেন্টারি স্টাডির সুবিধাগুলো লিখ।

অথবা, ডক্যুমেন্টারি স্টাডির সুবিধাসমূহ উল্লেখ কর।
অথবা, ডক্যুমেন্টারি স্টাডির কী কী সুবিধা রয়েছে তুলে ধর।
অথবা, ডক্যুমেন্টারি স্টাডির সবল দিকসমূহ লিখ।
উত্তর৷ ভূমিকা :
সামাজিক গবেষণার তথ্যসংগ্রহে যেসব পদ্ধতি ব্যবহার করা হয় তার মধ্যে ডক্যুমেন্ট স্টাডি ব্যবহার করে গবেষণা কর্ম পরিচালনা করে তাকে ডক্যুমেন্ট স্টাডি বলা হয়। এ পদ্ধতির যেমন কতকগুলো সুবিধা রয়েছে। অন্যতম । সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক গবেষকগণ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি নথিপত্র ও দলিল এমন তথ্য হিসেবে
ডক্যুমেন্ট স্টাডির সুবিধা : নিম্নে ডক্যুমেন্ট স্টাডির সুবিধা আলোচনা করা হলো :
১. অসাম্য ও দুষ্প্রাপ্য বিষয়াদি : যেসব অবস্থা বা বিষয় সম্পর্কে অনুসন্ধান কাজে গবেষকের দৈহিক প্রবেশাধিকার সম্ভব নয়, সে সব বিষয়ের উপর অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে ডক্যুমেন্ট উপযোগী তথ্য সংগ্রহ মাধ্যম ।
২. প্রতিক্রিয়াহীনতা : অনুসন্ধানটি একমুখী হওয়ার কারণে উত্তরদাতার প্রতিক্রিয়া বা অন্য কোনো প্রভাব পড়ে না ।
৩. অনুকল্প গঠন ও তুলনা : উপস্থিতি ডক্যুমেন্ট সামাজিক গবেষণার অনুকল্প গঠনে তাত্ত্বিক ভিত্তি হিসেবে কাজ করে আবার বিভিন্ন সামাজিক অবস্থার তুলনামূলক সমীক্ষার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সরবরাহ করে ।
৪. নমুনা আকার : এ পদ্ধতিতে বিস্তৃত এলাকায় নমুনা নিয়ে জরিপের কাজ করা যায় ।
৫. উন্নতমান : কিছু কিছু ডক্যুমেন্ট অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য (যেমন- লোক গণনা রিপোর্ট), ফলে প্রাপ্ত তথ্যও উন্নতমানের হয়।
৬. ঐতিহাসিক পদ্ধতি : এটি ঐতিহাসিক বিষয় গবেষণার একমাত্র পদ্ধতি ।
৭. স্বতঃস্ফূর্ততা : প্রত্যক্ষ পর্যবেক্ষণের মতো এখানেও স্বতঃস্ফূর্ততা, প্রাথমিক তৎপরতা বা অনুভূতি ধারণ করা যায়। যথা : আত্মচরিত, রোজনামচা, চিঠিপত্র ইত্যাদি ।
৮. স্বীকারোক্তি : প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে ব্যক্তির অনেক সঠিক তথ্য পাওয়া যায় না। কিন্তু রোজনামচা, আত্মচরিত, আত্মহত্যাপত্র ইত্যাদিতে সত্য ঘটনা নিহিত থাকে ।
৯. সাশ্রয় : এখানে তুলনামূলক খরচ ও সময় কম লাগে।
১০. গোপনীয়তা রক্ষা : উত্তরদাতার কাছ থেকে প্রত্যক্ষ তথ্য সংগ্রহ করার চেয়ে ডক্যুমেন্ট ব্যবহারে যাবতীয় গোপনীয়তা রক্ষা করা সুবিধাজনক ।
১১. দীর্ঘস্থায়ী : প্রয়োজন হলে দীর্ঘসময় ধরে গবেষণা কাজ চালনা করা হয় তবুও কারো বিরক্তি হয় না ।
উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায় যে, ডক্যুমেন্ট স্টাডি সাম্প্রতিকালে কিছু গবেষণার একমাত্র পদ্ধতি হিসেবে কাজ করে। এ পদ্ধতি ডক্যুমেন্টের কার্যকারিতার উপর নির্ভরশীল বলে সংশ্লিষ্ট সবারই উচিত গবেষণার প্রয়োজনে বিভিন্ন ডক্যুমেন্ট মানসম্মত ও বৈজ্ঞানিক উপায়ে সংরক্ষণ করা এবং তার ব্যবহার নিশ্চিত করা । সবশেষে বলা যায় যে, এ পদ্ধতি বর্তমানে বেশি উপযোগী ভূমিকা পালন করে থাকে ।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!