ডিগ্রি ২য় বর্ষ(২০১৯-২০) নিয়মিত ও প্রাইভেট শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফরম পূরণ চলবে ৭/০২/২০২৩ থেকে ৭/০৩/২০২৩ পর্যন্ত। *পরীক্ষা হবে কেন্দ্র খালি থাকলে এপ্রিলের শুরুতে বা ঈদের পরপরই। কলেজসমূহে ফরম পূরণ ফি ১৫০০ এর মধ্যে।

জাতীয় বাজেটে নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি কেমন?

অথবা, নারীর উপর জাতীয় বাজেটের প্রভাব সংক্ষেপে বর্ণনা কর।
অথবা, `নারীর উপর জাতীয় বাজেটের প্রভাব সংক্ষেপে আলোচনা কর।
অথবা, নারীর উপর জাতীয় বাজেটের প্রভাব সংক্ষেপে তুলে ধর।
অথবা, নারীর উপর জাতীয় বাজেটের প্রভাব সংক্ষেপে বিবরণ দাও।
উত্তর৷ ভূমিকা :
বাজেট হচ্ছে কোনো দেশের সরকারের একটা গুরুত্বপূর্ণ দলিল। যাতে সেই দেশের আগামী এক বছরের আয়ব্যয়ের হিসাব লিপিবদ্ধ থাকে। আর এ আয়ব্যয়ের হিসাব সে দেশের জাতীয় নীতির আলোকে করা হয়ে থাকে। একটি দেশের জাতীয় বাজেট সে দেশে জাতীয় উন্নয়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়েও নারীর প্রতি বৈষম্য দেখানো হয়। জাতীয় বাজেট নারীর প্রতি যে দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে তা নিম্নরূপ :
১. পুরুষ নিয়ন্ত্রণ বাজেট : জাতীয় বাজেটে নারীর জন্য বরাদ্দ নিয়ে দেশব্যাপী মতবিনিময় সভা, গোলটেবিল বৈঠক, তৃণমূল মানুষের জনমত যাচাই ইত্যাদি হলেও গত বছরগুলোর বাজেট পর্যালোচনায় দেখা যায়, নারীর ক্ষমতায়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে বর্তমান বাজেটে এমন দৃষ্টিভঙ্গির অভাব রয়েছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাজেট প্রণয়নে পুরুষেরই নিয়ন্ত্রণ বহাল থেকেছে।জেটে সরকার নারীর জন্য প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতার
২. নারী উন্নয়নে বরাদ্দের স্বল্পতা : ২০০৩-২০০৪ অর্থবছরের প্রথম অংশে ১৭ নম্বর অনুচ্ছেদে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তা অসহায় নারীদের ভাতাসহ বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি বাবদ বরাদ্দ বৃদ্ধি ইত্যাদিকে আগামী অর্থ বছরের রাজস্ব ব্যয় বৃদ্ধির প্রধান কারণ হিসেবে উল্লেখ করে। রাজস্ব বাজেটে প্রস্তাবিত ১৪.৫% ব্যয় বৃদ্ধির মধ্যে প্রায় ৭% নারীর জন্য উল্লিখিত বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচির কারণে ব্যয় হচ্ছে। আর এটা নারীর পশ্চাৎপদতা ও অসহায়ত্বকেই তুলে ধরে।
৩. শ্রমজীবী নারীদের জন্য বরাদ্দ না থাকা : ২০০৩-২০০৪ অর্থবছরের বাজেটে শ্রমজীবী নারীদের কর্মসংস্থান ও বাসস্থানের ব্যবস্থাসহ তাদের উন্নয়নের জন্য বিশেষ কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি এবং অসংগঠিত ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে অসংখ্য শ্রমজীবী নারীর জন্য বাজেটে কোনো বরাদ্দ নেই। অথচ সরকারি কোষাগারে রয়েছে নারীর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অবদান।
উপসংহার : পরিশেষে আমরা বলতে পারি, বাংলাদেশে জাতীয় বাজেটে নারীর প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ অত্যন্ত দুঃখজনক। বাজেট একটি দেশের জাতীয় বিষয় তাই এতে নারী-পুরুষ সবার জন্য সমান সুযোগ রাখতে হবে। তাহলেই কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন ঘটবে।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!