Answer

আবদ্ধ মাঠকর্ম সংস্থাপনের ক্ষেত্রসমূহ কী কী-আলোচনা কর।

অথবা, বিশেষ মাঠকর্ম সংস্থাপনের ক্ষেত্র বা পরিধি সম্পর্কে আলোচনা কর।
অথবা, আবদ্ধ মাঠকর্ম সংস্থাপনের ক্ষেত্র সম্পর্কে বর্ণনা কর।
অথবা, বিশেষ মাঠকর্ম সংস্থাপনের পরিধি সম্পর্কে বিশ্লেষণ কর।
উত্তর।৷ ভূমিকা :
আবদ্ধ বা বিশেষ মাঠকর্ম বলতে সেই মাঠকর্মকে বুঝায় যেখানে সমাজকর্মীরা একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হিসেবে গড়ে উঠার ক্ষেত্রে জ্ঞানার্জন করেন। সাধারণ সহগামী মাঠকর্ম শেষ করার পর আবদ্ধ বা বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনে প্রেরণ করা হয় ।
আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের বেশ কিছু ক্ষেত্র রয়েছে । নিম্নে এ ক্ষেত্রগুলো উল্লেখ করা হলো :
১. ট্রমা সেন্টার : ট্রমা সেন্টারগুলো আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম ক্ষেত্র। সেখানে বিশেষ ধরনের সেবা প্রদানের মাধ্যমে রোগীদের সুস্থ করে তোলা সম্ভব ।
২. চিকিৎসা সমাজকর্ম : চিকিৎসা সমাজকর্মমূলক যেসব প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানেও আবদ্ধ/বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের অন্যতম ক্ষেত্র হতে পারে । এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষানবিস সমাজকর্মীরা বিশেষ জ্ঞানার্জন করতে পারে ।
৩. প্রতিবন্ধী কল্যাণকেন্দ্র : আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম ক্ষেত্র হচ্ছে প্রতিবন্ধী কল্যাণ কেন্দ্র। বিশ্বের প্রায় ১০% মানুষ প্রতিবন্ধী । এসব প্রতিবন্ধীদের কল্যাণে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এসব প্রতিষ্ঠানে আবদ্ধ/বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের সুযোগ রয়েছে ।
৪. মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্র : বর্তমানে বিশ্বে মাদকাসক্তের পরিমাণ আশঙ্কাজনকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে।শুধু বাংলাদেশেই বর্তমানে প্রায় ৪০,০০,০০০ (চল্লিশ লক্ষ) মাদকাসক্ত রয়েছে বলে জানা যায়। এসব মাদকাসক্তদের চিকিৎসার জন্য যেসব মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্র রয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানেও আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের সুযোগ রয়েছে।
৫. শিশু সদন : আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম ক্ষেত্র হচ্ছে শিশু সদন। শিশু সদনে সমাজকর্মের প্রায়োগিক/ বিশেষ জ্ঞান অর্জন করা যায়।
৬. পতিতালয় : আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের একটি অন্যতম ক্ষেত্র হচ্ছে পতিতালয়। পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই পতিতালয় রয়েছে।আমাদের দেশে ১২টি স্বীকৃত পতিতালয় রয়েছে।এসব পতিতালয়ে মাঠকর্ম চর্চার সুযোগ রয়েছে।
৭. কিশোর অপ্রাধ কেন্দ্র : বর্তমানে বিশ্বে কিশোর অপরাধের পরিমাণ আশঙ্কাজনকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধু বাংলাদেশেই বর্তমানে প্রায় ১,০০,০০০(এক লক্ষ) কিশোর অপরাধী রয়েছে বলে জানা যায়। এসব কিশোর অপরাধীদের সংশোধনের জন্য বাংলাদেশে বর্তমানে ৩ টি কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র রয়েছে।কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের পূর্ব নাম ছিল কিশোর সংশোধন কেন্দ্র।এসব কেন্দ্রে আবদ্ধ মাঠকর্ম চর্চার সুযোগ রয়েছে।
৮. মানবাধিকার সংস্থা : বর্তমানে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই কমবেশি মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে।এজন্য মানবাধিকার সুরক্ষায় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বেশ কিছু মানবাধিকার সংগঠন গড়ে উঠেছে। এসব মানবাধিকার সংগঠনগুলোতেও আবদ্ধ মাঠকর্ম চর্চার সুযোগ রয়েছে।
৯. নারী কল্যাণ সংস্থা : বিশ্বের প্রায় ৫০% জনগোষ্ঠীই নারী। কিন্তু নারীরা নানা কারণে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে;নির্যাতিত ও নিপীড়িত হচ্ছে। তাই নারী কল্যাণের জন্য গড়ে উঠেছে দেশি বিদেশি নানা সংস্থা। এসব প্রতিষ্ঠানেও আবদ্ধ/বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের সুযোগ রয়েছে।
১০. প্রবীণ কল্যাণ সংস্থা : বিশ্বের প্রায় ৬-৭% জনগোষ্ঠীই প্রবীণ। কিন্তু তারা নানা কারণে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে;নির্যাতিত ও নিপীড়িত হচ্ছে। তাই তাদের কল্যাণের জন্য গড়ে উঠেছে দেশি বিদেশি নানা প্রবীণ কল্যাণ সংস্থা।এসব সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানেও আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের সুযোগ রয়েছে।
উপসংহার : উপর্যুক্ত ক্ষেত্রগুলো ছাড়াও যুব কল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান, এতিমখানা, শহর সমাজসেবা কেন্দ্র, পল্লি সমাজসেবা কেন্দ্র, হাসপাতাল সমাজসেবা কেন্দ্র, হিজড়া জনগোষ্ঠী উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কর্মরত বিভিন্ন এনজিও ও স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানে আবদ্ধ/ বিশেষ মাঠকর্ম অনুশীলনের সুযোগ রয়েছে।

পরবর্তী পরীক্ষার রকেট স্পেশাল সাজেশন পেতে হোয়াটস্যাপ করুন: 01979786079

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!